ময়ূরী পাঁজার তিনটি ” অনুগল্প”

#অণুগল্প
” পাঁচ লাখ ?  পারব না দাদা। পাঁচ  দিলে আমরা ভবিষ্যতে খাব কি?  “
” শুনুন দাদা এটা ইনভেস্টমেন্ট হবু বেয়াই মশাই হিসেবে , আপনার মেয়ে জামাইর ভালো থাকার তারপর আমাদের আত্মীয়রা কি বলবে.. আপনিই বলুন “
আলোচনা শুনে রাণীর শিরায় আগুন ছুটে গেল। পর্দা সরিয়ে বাইরের ঘরের দরজায় দাঁড়িয়ে কয়েকটা শব্দ উচ্চারণ করল  ”  পাঁচ লাখ পোস্ট অফিসে এম আই এসে ইনভেস্ট করলে  সুদে আমাদের সারা জীবন চলে যাবে,  এসব চিট ফান্ডে টাকা রেখো না বাবা..  অনেক সময় নষ্ট হল আমাদের। আসুন এবার “
#অণুগল্প
ক্যানভাস জুড়ে সৌমিত্রর তুলির টানে ফুটে উঠছে এক বৃষ্টিভেজা সন্ধ্যার এক দম্পতির খুনসুটি মাখানো ছবি… সুদেষ্ণা হুইলচেয়ারে বসে গালে হাত রেখে নিবিষ্ট মনে দেখছে,  ভাবছে ” সেদিন দূর্ঘটনার জন্য পাটা কেটে বাদ না দিলে … “
” দ্যাখো সৌ ,  তোমার জন্মদিনের উপহার.. ” কাঠের পায়ের উপর ভর দিয়ে হুইলচেয়ারের হাতলে হাত রেখে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে সৌমিত্রর ‘ সারি ‘…
সৌমিত্রর চোখ ঝাপসা হয়ে ওঠে
সারির হাত ধরতে এগিয়ে যায়।
#অণুগল্প
রাত্রি আঙুল বুলিয়ে বুলিয়ে বই পড়ছিল,  পলক না ফেলে দেখছিল অন্বয়। মুখ তুলে হেসে ফেলল রাত্রি, বলে উঠল ” পাগল একটা “!
অন্বয় অবাক হয়ে বলল  ” হাসলে যে ? “, রাত্রি হেসে বলে ” ভগবান আমায় দৃষ্টি দিতে ভুলেছেন, অনুভূতি দশ হাতে ভরে দিয়েছেন “….

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *